চাঁদপুর মহিলা কলেজের দুই ছাত্রীর কান্ড

চাঁদপুর মহিলা কলেজের দুই ছাত্রীর কান্ড

ক্রাইম রিপোট

রবি বার ঘড়ির কাটা ১২ টা চাঁদপুর শহরের এক সাংবাদিক চাঁদপুর সরকারি মহিলা সড়ক ধরে যাবার সময় হঠাৎ করে কলেজের অনার্স পরুয়া বি – জা নামের প্রথম অক্ষর দু জনই চশমা পড়া ছাত্রী বের হয়ে সামনে পড়লে পথ মধ্য সাংবাদিক কে দেখে লুকিয়ে যায়,ঠিক ২০ মিনিট পর ওই দুই ছাত্রী দুই জন হাছান আলি মাঠের ঝাল মুড়ি দোকানে গিয়ে হেলে ঢুলে রঙ্গ মঞ্চে মুড়ি দিতে বলে এর পিছন দিক থেকে হয়ত চা খাওয়ার জর্ন ইয়াং চশমা পরিহিত দুই শিক্ষকের পথ চলার সময়, বড় চশমা পড়া নামের প্রথম বি অক্ষেরের মেয়েটি স্যার তাদের দিকে তাকাতেই উচ্চ হাসি দিয়ে ডান হাত উঠিয়ে প্রকাশ্য টা টা বাই বাই বলে উঠলো, আর শিক্ষক খুবই খুশি হয়ে মৃদ হাসিঁতে মুগ্ধ হলো, এই হলো আজ কালকার মেয়েদের অতি উৎসাহিত ছেলে পাগল করার কলকাটী, কিন্তু ওই দুই মেয়ের মধ্যে যে হাতে টা টা দিয়েছে তার বাবা একজন শিক্ষক আর তার সাথের মেয়েটির বাবা ল্যাপ তোসক ব্যবসায়ি,হায়রে মেয়েরা বাবা মা লেখা পড়া করার জর্ন স্কুল কলেজে পাঠায় অথচ ওরা লেখা পড়ার নাম করে রাস্তা ঘাটে কি করে,এমন ও জানা গেছে এই দুই ছাত্রী শহরের নামি দামি রেস্তুরা সহ বড় ষ্টেষন ঠোটা সহ পার্ক এবং ডাকাতিয়া নদিতে নৌকা ভ্রমন করে ছেলে বয় ফ্রেন্ডদের নিয়ে, আসলে সুনাম ধন্য পরিবার বর্গ মেয়েদের বেলায় এটা কোন ঘটনা না, যেমন ঘটেছে বরিশালে ছাত্রের হাত ধরে শিক্ষিকার পলায়ন,আর আমাদের সৌব্য সমাজের মুখোশের আড়ালে ঘটতে পারে শিক্ষকের হাত ধরে ছাত্রীর পলায়ন,এর পরে মেয়ে দুটি অটো বাইকে উঠে চলে গেলো, এর প্রতিকার করা কার দায়িত্ব অভিভাবক নাকি শিক্ষক দের যারা মানুষ গড়ার কারিগর তারা যদি ছাত্রীদের মুখের হাঁসিতে ভেসে যায় তাহলে মহিলা কলেজের দূর্ণাম রটবে, গোপনীয় রক্ষার্থ্যে মেয়ে ছাত্রী দুই জনের ছবি প্রকাশ করা হলো না,কিন্তু শিক্ষক কে টা টা দেওয়া মেয়েটি পূর্বে বহু পরকীয় ঘটনা ঘটিয়ে ছেলেদের জীবন নষ্ট করে সংসারে অশান্তি সৃষ্টি করে চাঁদপুরে এমন ঘটনার কেলেংকারি করেছিলো যাহা সাংবাদিক সমাজ সহ সকলে অবগত রয়েছেন, আর তাই এসব ছাত্রীদের ব্যপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃ পক্ষ নজর দিন তার সাথে নারী লুভি শিক্ষকদের প্রতি,

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Website Design, Developed & Hosted by ALL IT BD