১৩৬ কোটি টাকা আত্মসাৎ: ১৬টি মামলা করছে দুদক

জিটিবি নিউজ ডেস্ক : প্রতারণার মাধ্যমে গ্রাহকদের কাছ থেকে সংগ্রহ করা প্রায় ১৩৬ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ফারইস্ট ইসলামি মাল্টি কো-অপারেটিভ সোসাইটির কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে মামলা করছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। সম্প্রতি কমিশনের সভায় প্রতিষ্ঠানটির ২৩ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অর্থপাচার আইনে ১৬টি মামলার অনুমোদন দেওয়া হয়। দুদকের অনুসন্ধান ও তদন্ত-২ বিভাগের উপপরিচালক গোলাম শাহরিয়ার চৌধুরী স্বাক্ষরিত চিঠিতে সংস্থার চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয়ের পরিচালককে মামলার অনুমোদনের বিষয়টি জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। শিগগিরই এসব মামলা করা হবে বলে দুদক সূত্র জানিয়েছে। প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান শামীম কবির ও তাঁর স্ত্রী হাসিনা সুলতানাসহ ২৩ কর্মকর্তাকে এসব মামলায় আসামি করা হচ্ছে।
সূত্রটি জানায়, ফারইস্ট ইসলামি মাল্টি কো-অপারেটিভ সোসাইটি (এফআইসিএল) নামের সংস্থাটি ২০০৭ সাল থেকে সমবায় প্রতিষ্ঠান হিসেবে (নিবন্ধন নম্বর: ৯০১০) নিবন্ধিত। তারা ডিপিএস এবং এমপিডিআর (মাল্টি-প্রফিট ডিপোজিট) এর লোভ দেখিয়ে গ্রাহকদের কাছ থেকে টাকা সংগ্রহ করত। প্রতি লাখে গ্রাহকদের দুই হাজার টাকা করে মুনাফা দেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়। সে ঘোষণার পরিপ্রেক্ষিতে বিপুলসংখ্যক গ্রাহক তাদের কাছে অর্থ জমা রাখেন। পরবর্তীতে প্রতিষ্ঠানটির মালিকেরা প্রতিষ্ঠানের হিসাব থেকে নিজেদের ব্যাংক হিসাবে ওই টাকা স্থানান্তর করেন।
অনুসন্ধান সূত্রে জানা গেছে, কুমিল্লার বিভিন্ন এলাকায় এফআইসিএলের অফিসের মাধ্যমে গ্রাহকের কাছ থেকে সংগ্রহ করা ১৩৫ কোটি কোটি ৬৯ লাখ ২৭ হাজার ১৩৮ টাকা মানিলন্ডারিংয়ের অভিযোগে এই ১৬টি মামলা করা হচ্ছে।
এর মধ্যে প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান শামীম কবিরকে ১১টি, তাঁর স্ত্রী হাসিনা সুলতানাকে ৮টি, সোসাইটির সম্পাদক এমদাদুল হককে ১২টি, সদস্য আবু ইউসুফকে ১৩টি এবং ইমরানুল ইসলাম জুয়েলকে ১১টি মামলায় আসামি করা হচ্ছে। এ ছাড়া আসামির তালিকায় আছেন দুলাল আহম্মেদ, শাহীনা আক্তার, মর্জিনা আক্তার, মো. জহিরুল হক, রোজিনা আক্তার, শামসুল আলম, আব্দুল্লাহ আল মামুন, এবিএম হুমায়ুন কবির, পারভেজ আহম্মদ, শরীফ মজুমদার, সেলিনা আক্তার, শাহনাজ বেগম পাখি, আবু তাহের, হালিমা বেগম, শাহ আলম, মোহাম্মদ শাহ আলম, সুলতান মাহমুদ বাছির ও আবদুস সালাম।
এফআইসিএল এর প্রধান কার্যালয় ঢাকার পুরানা পল্টনে। এফআইসিএল ইন্টারন্যাশনাল, (প্রা.) লিমিটেড, এফআইসিএল পরিবহন (প্রা.) লিমিটেড, এফআইসিএল হোটেল এণ্ড রেস্টুরেন্ট (প্রা.) লিমিটেড, এফআইসিএল সিএনজি ফিলিং স্টেশন ও এফআইসিএল অটো রাইস মিলস নামেও এর বিভিন্ন সহযোগী প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Website Design, Developed & Hosted by ALL IT BD