রাজধানীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে গৃহবধূর মৃত্যু

রাজধানীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে গৃহবধূর মৃত্যু

কাজি রাসেল ঢাকা

রাজধানীর কামরাঙ্গীরচরে ডিপিডিসির বিদ্যুতের লাইন ছিড়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে এক গৃহবধূর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। আজ শনিবার বিকালে তার মৃত্যু হয়। গত বৃহস্পতিবার এ ঘটনা ঘটে। তার নাম রোকেয়া বেগম (৪৫)। স্বামীর নাম ইউনুস হাওলাদার। এদিকে,এ ঘটনা খতিয়ে দেখতে দুই সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করছে ডিপিডিসি।

জানা গেছে, কামরাঙ্গীরচরের ৫৭ নম্বর ওয়ার্ডের তারা মসজিদ এলাকায় রাস্তার পাশে বসে রোকেয়া বেগম সবজি বিক্রি করতেন। তিনি কামরাঙ্গীরচরের টোটা এলাকায় সবজি বিক্রি করতেন। তার স্বজনদের অভিযোগ, বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের গাফিলতির কারণেই রোকেয়া বেগমের প্রাণহানি ঘটেছে। ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে বিদ্যুৎ অফিসে ফোন দিলেও দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা ফোন ধরেন নি।

আর ডিপিডিসি কর্তৃপক্ষ বলছে, ঘটনা খতিয়ে দেখতে দুই সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।ডিপিডিসির গ্রিডের প্রধান প্রকৌশলী সারওয়ার কায়নাতে নূর ও লালবাগ সার্কেল এর তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী তরিকুলকে এই ঘটনায় তদন্ত করতে দুই সদস্যর তদন্ত কমিটি গঠন করেছে কর্তৃপক্ষ। কমিটিকে আগামী দুই দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এই বিষয়ে ডিপিডিসির নির্বাহী পরিচালক (অপারেশন) প্রকৌশলী এটিএম হারুন অর রশিদ জানান, তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন হাতে পেলে যদি কেউ দায়ী থাকে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। বিদ্যুৎ বিভাগের অবহেলা ও দায়িত্বহীনতার কারণে এ র্দুঘটনা ঘটেছে এলাকাবাসীর এমন অভিযোগের ব্যাপারে তিনি বলেন, সংশ্লিষ্ট বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। তিনি জানান, আমরা নিয়ম অনুযায়ী পরিবারটিকে সহযোগিতার চেষ্টা করব এবং এই ঘটনায় তিনি দুঃখ প্রকাশ করেন।

এ ব্যাপারে ডিপিডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী বিকাশ দেওয়ান বলেন, বিষয়টি খুব দু:খজনক। তদন্ত প্রতিবেদন হাতে পেলেই দায়ীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

প্রতক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, রোকেয়া বেগম ভোলার চরফ্যাশনের আবদুল্লাহপুরের বাসিন্দা। ঢাকার কামরাঙ্গীরচরে তিনি মসজিদ সংলগ্ন আবদুল আলীর বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। তার ৮ ও ১০ বছর বয়সী দুটি সন্তান রয়েছে। কামরাঙ্গীরচরের টোটায় লবণের মিল এলাকায় সবজি বিক্রি করতেন রোকেয়া বেগম ও তার স্বামী। তাদের দোকানের ওপর দিয়ে টানা হয়েছে ডিপিডিসির উচ্চ ক্ষমতার বিদ্যুতের তার।

গত বৃহস্পতিবার বিকালে রোকেয়া বেগম দোকানে বসে সবজি বিক্রি করছিলেন। হঠাৎ ঝড়ের কারণে বৈদ্যুতিক তার ছিঁড়ে তার দোকানের ওপর পড়ে আগুন ধরে যায়। এসময় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ঢাকা মেডিকেলে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গতকাল শনিবার তাকে চিকিৎসক মৃত্যু ঘোষনা করেন।

স্থানীয়দের একাধিক বাসিন্দা অভিযোগ করেন, সংশ্লিষ্ট বিদ্যুৎ অফিসে যে কোন বিষয়ে অভিযোগ করলে তারা কোন কর্ণপাত করেন না।

এদিকে,স্থানীয় বাসিন্দা জামাল জানান,বিদ্যুৎ বিভাগের অবহেলা ও দায়িত্বহীনতার কারণে অকালেই দরিদ্র এই গৃহবধূর প্রাণ দিতে হলো। আমরা এ দূর্ঘনার ক্ষতি পূরণ দাবী করছি।অন্যদিকে,যোগাযোগ করা হলে কামরাঙ্গীরচর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আনোয়ার হোসেন বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Website Design, Developed & Hosted by ALL IT BD