চট্টগ্রামে গণমাধ্যমকর্মীদের সুরক্ষায় এগিয়ে এলো কেএসআরএম

চট্টগ্রামে গণমাধ্যমকর্মীদের সুরক্ষায় এগিয়ে এলো কেএসআরএম

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

চট্টগ্রামের গণমাধ্যমকর্মীদের সুরক্ষায় পারসোনাল প্রটেকটিভ ইক্যুইপমেন্ট (পিপিই) দিয়ে এগিয়ে এলো ইস্পাত নির্মাণকারী শিল্পগ্রুপ কবির স্টিল রি-রোলিং মিলস লিমিটেড (কেএসআরএম)। বুধবার বিকালে টিভি জার্নালিস্টস এসোসিয়েশন চট্টগ্রামর সভাপতি নাসির উদ্দিন তোতার হাতে কেএসআরএমের পক্ষে এসব পিপিই তুলে দেন প্রতিষ্ঠানের মিডিয়া অ্যাডভাইজার মিজানুল ইসলাম।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও এসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী ও এসোসিয়েশনের যুগ্ম সম্পাদক ও ডিবিসি নিউজের ব্যুরো প্রধান মাসুদুল হক।

এ প্রসঙ্গে কেএসআরএমের মিডিয়া অ্যাডভাইজার মিজানুল ইসলাম নাগরিক বার্তাকে বলেন, দেশ ও দেশের মানুষের সংকট ও সমস্যায় এগিয়ে আসে কেএসআরএম। সেই ধারাবাহিকতায় এ অঞ্চলের চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের পর গণমাধ্যমকর্মীদের সুরক্ষায় এগিয়ে এসেছে দেশের বৃহত্তর ইস্পাত প্রস্তুতকারী শিল্পগ্রুপ কেএসআরএম। সাংবাদিকরা দেশের যেকোনো যুদ্ধ, বিগ্রহ ও দুর্যোগকালীন পরিস্থিতিতে সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে সঠিক তথ্য ও পরিস্থিতি তুলে ধরেন জাতির সামনে। নানা প্রতিকূলতায় তাদেরকে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ সংগ্রহ করতে হয়। অথচ বৈশ্বিক মহামারি করোনার সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে যেখানে পুরো বিশ্ব থমকে আছে, ঘরে থাকার বাধ্যবাধকতা রয়েছে এমন পরিস্থিতিতেও গণমাধ্যমকর্মীরা ঝুঁকি নিয়ে ঘটনার পেছনে ছুটছে নিরন্তর। তাই তাদের সুরক্ষার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়েছে কেএসআরএমের উপ ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহরিয়ার জাহান। মূলত তাঁর উদ্যোগ ও আন্তরিকতায় এ অঞ্চলের গণমাধ্যমকর্মীদের জন্য এসব পিপিই দেওয়া হয়েছে।

টিভি জার্নালিস্টস এসোসিয়েশন চট্টগ্রাম’র সভাপতি ও বাংলাভিশনের চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান নাসির উদ্দিন তোতা বলেন, করোনা পরবর্তী বিশ্ব পরিস্থিতি কেমন হবে তা অনুমান করা যাচ্ছে না। দিনদিন পরিস্থিতি খুব ভয়াবহ হয়ে উঠছে। প্রতিনিয়ত বড় হচ্ছে লাশের মিছিল। কিন্তু এ অবস্থায়ও গণমাধ্যমকর্মীদের ঘরে থাকার কোনো সুযোগ নেই। সকাল সন্ধ্যা ঝুঁকি নিয়ে নিরলসভাবে কাজ করতে হচ্ছে। দেশের যেকোনো পরিস্থিতির আপডেট কিন্তু আমরাই দিয়ে থাকি। প্রতিনিয়ত আমাদের পেশাগত ঝুঁকির মধ্যে থাকতে হয়। এমন পরিস্থিতিতে যে কয়েকটি প্রতিষ্ঠান এগিয়ে এসেছে তাদের মধ্যে কেএসআরএম অন্যতম। অতীতেও আমরা আমাদের যেকোনো প্রয়োজনে কেএসআরএমকে পাশে পেয়েছি। আমরা আশা করছি গণমাধ্যমকর্মীদের প্রতি এমন আন্তরিক সহযোগিতা আগামীতে অব্যাহত থাকবে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Website Design, Developed & Hosted by ALL IT BD