হাজীগঞ্জ বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড অর্ধশতাধিক দোকান পুরলো ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ১০ কোটির অধিক

হাজীগঞ্জ বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড অর্ধশতাধিক দোকান পুরলো ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ১০ কোটির অধিক

হাজীগঞ্জ প্রতিনিধি

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় অর্ধশতাধিক দোকানে প্রায় ১০ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

২ আগস্ট রোববার দিবাগত রাত ১.৩০ মিনিটে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়।
ব্যবসায়ী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান আগুন লাগার সাথে সাথে মুহুর্তের মধ্যে আধাপাকা ও কাঠের তৈরি দোতলা বিশিষ্ট দোকান ঘর সহ প্রায় অর্ধশতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আগুনে পুড়ে যায়। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ প্রশাসন, উপজেলা প্রশাসন, হাজিগঞ্জ পৌরসভার কর্মকর্তা কর্মচারী, বাজার ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের পাশাপাশি শতাধিক তরুণ প্রাণপন চেষ্টা চালিয়েছে।
পুড়ে যাওয়া ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য সফিউল্লা কারী, খোরশেদ, আবুল বাশার, ফাতেমা এন্টারপ্রাইজ, অনিল সাহা, ওষুধ ফার্মেসী ২ টি, মান্নানসহ প্রায় অর্ধশতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এছাড়াও প্রায় আরো অর্ধশতাধিক দোকানে আগুনের তাপে, আগুন নেভাতে দমকল বাহিনীর ব্যবহৃত পানিডুকে পড়ে মালামাল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।
চাঁদপুর সার্ভিসের সহকারী উপ-পরিচালক ফরিদ আহমেদ বলেন, সার্ভিসের চারটি স্টেশনের পাঁচটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করেছে। স্টেশন গুলো হল হাজীগঞ্জ, শাহরাস্তি, কচুয়া, চাঁদপুর সদর উপজেলা ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করে। প্রায় তিন ঘণ্টা ধরে কাজ করার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।
হাজীগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী সমিতর সাবেক সভাপতি রোটাঃ আহসান হাবিব অরুন জানান ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নির্ণয় করা যায়নি। সকাল হলে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানা যাবে। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় আহত ৫/৬ জনকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তাদের চিকিৎসা ব্যয়ভার গ্রহণ করবেন ব্যবসায়ী সমিতি।
হাজিগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আশরাফুল আলম চৌধুরী জানিয়েছেন ৩৪ থেকে প্রায় ৫০ টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এখানে বেশিরভাগ দোকান গুলো বিভিন্ন কোম্পানির বিভিন্ন পণ্যের ডিলার, ফার্মেসী, বাঁশ শিল্প, মুদি দোকান ও টিনের দোকান ছিল।

অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে হাজিগঞ্জ পৌর মেয়র আ.স.ম. মাহবুবুব-উল আলম লিপন, হাজীগঞ্জ সদর সার্কেল আফজাল হোসেন, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন রনিসহ হাজীগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দ দ্রুত ঘটনাস্থলে আসেন।

হাজীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বৈশাখী বড়ুয়া জানিয়েছেন অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে যাওয়া দোকান মালিকের তালিকা তৈরি করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে আর্থিকভাবে সহযোগিতা করা হবে।
হাজীগঞ্জ বাজারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় গভীর দুঃখ প্রকাশ ও ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন মাননীয় সংসদ সদস্য মেজর অবসরপ্রাপ্ত রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি। তিনি জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের কে যথাসাধ্য সরকারি সহায়তা প্রদান করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Website Design, Developed & Hosted by ALL IT BD