মফিজ দের মত অনেকেই আছে।ইমাউল হক পিপিএম

মফিজ দের মত অনেকেই আছে।ইমাউল হক পিপিএম

কক্সবাজার প্রতিনিধি

চলতে চলতে গাড়ী নষ্ট। থেমে গেল।আর যায় না।উপরন্ত চালক বার বার চেষ্টা করেও বিরক্ত। রাস্তার রং সাইডে গাড়ী পড়ে আছে।আর হয়ত যাবে না।গন্তব্যে যেতে এখনও 12 কিমি।সেমি মহা সড়ক ।রিক্সা টেম্পু চলে না।তবে লোকাল বাস চলে ।কিন্ত গাড়ী প্রায় ত্রিশ জন যাত্রী।খালি বাস পাওয়া গেলে না লিপ দিবে ।যাত্রীদের মহা কষ্ট দেখে এক ভদ্রলোক মি মফিজ গাড়ীর চাবি নিয়ে ইন্জিন পরীক্ষা করতে চাইল।ড্রাইভিং সিটে বসে চেষ্টা করার দাবি করল।

এবার বাদ সাধলেন ড্রাইভার। সে কিছুতেই চাবি দিবে না আর তার গাড়ীর ইন্জিন পরীক্ষা করার মফিজ কে।কথা তো ঠিকই। মফিজ গাড়ী চালাতে পারে কি পারে ।ইন্জিন পরীক্ষা করতে পারে কি না পারে তা তো কেউ জানে না।

আর ড্রাইভার সাহেবের তো গাড়ী।চালকের হাতেই গাড়ীর নিয়ন্ত্রণ। আবার মিল মফিজ কে সুযোগ দিলে যদি গাড়ী পানিতে পড়ে তাহলে দায়িত্ব নিবে কে।মহা বিতর্ক। এ যাত্রীদের দাবী যে কোন ভাবে তাদের কে গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়া ।

একজন দুইজন করে বিকল্প পথে চলে যাচ্ছে।কেউ ভাড়া ফেরত পেল কেউ পায়নি।অনেক বিলম্ব হওয়ায় চালক গাড়ী ঠিক না হওয়ায় হতাশ। ধীরে ধীরে সব যাত্রী নেমে গেল। চালক হঠাত ই ভীষন অসুস্থ। জীবন যায় অবস্থা।মফিজ ভাই,মফিজ ওস্তাদ, মফিজ স্যার করে ডাকলেন। বললেন যেভাবেই পারে গাড়ীর চাবি নিয়ে গাড়ী চালানোর চেষ্টা করেন আর আমাকে হাসপাতালে ভর্তি করেন।
মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার মি মফিজ টাটা কোম্পানিতে 25 বছরে 25000/বাস ই তৈরি করেছে ।তার কাছে নষ্ট বাস চালু করা কোন বিষয় নয়।
গাড়ীর ড্রাইভিং সিটে উঠে বুঝতে পারলে ,ইন্জিন ওয়েল এক বছর পুরোনো,প্লাগ স্পার্কিং কম,অন অফ সুইচ কাজ করে না ।মাঝে মধ্যেই ডিসকানেক্ট হয়ে যায়। যাই হোক মি মফিজ গাড়ী সহ নিয়ে চালককে হাসপাতালে ভর্তি করল।মফিজ দেশে এসে মটর মেকানিক্স এর চাকরিতে পরীক্ষা দিয়ে চান্স পায়নি।বেকার ঘোরে ।আর চালকের ড্রাইভিং লাইসেন্স মেয়াদ তিন বছর আগেই শেষ,চোখের দৃষ্টি শক্তি এমন যে কখন পাওয়ার কি অফ হয়ে গেছে খালি চোখে দেখতে পারে নাই।

আসলে মফিজের মত যোগ্যতার অনেক লোক আমাদের পাশে আছে।তাদের আমরা চাবি দেই না।তারা কিছু জানে সেটা স্বীকার করি না।
আবার জীবন মরন হলে মফিজ দের ঘারে দায়িত্ব দেই।আর জীবন থাকতে লোভনীয় পোষ্ট চালকের দায়িত্ব ছাড়তে চাই না।চালনার যোগ্যতা না থাকলেও গাড়ী নষ্টের অজুহাতে র মত দায়িত্ব কর্তব্য নষ্ট করে ত্রিশ জন বা তিন লাখ যাত্রী মানে জনগণের গন্তব্য নষ্ট করি।
তাতে মফিজ রা সামনে আসতে না পেরে হাজার হাজার গন্তব্যের মানুষ রাস্তায় যাত্রা স্থগিত করে হয়রানি হচ্ছেন।

আর খন্ড খন্ড করে জাতির অনেক অংশ ই গন্তব্য নিয়ে হতাশ। বাসে নয় খন্ড খন্ড জাগাতে ইঞ্জিনিয়ার মফিজ দের ও চালকের আসনে সময় সময় সুযোগ দেওয়া উচিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Website Design, Developed & Hosted by ALL IT BD