ঢাকা যাত্রা বাতিল করলেও নাইট গার্ডের চাকরি খেলেন- ইমাউল হক পিপি এম

ঢাকা যাত্রা বাতিল করলেও নাইট গার্ডের চাকরি খেলেন- ইমাউল হক পিপি এম

কক্সবাজার প্রতিনিধি

এই ঢিল হতে আপনি ,আমি ,আমরা ,আমাদের সাবধান হওয়ার সময়!আর স্কুল চোরদের নাইট গার্ড থেকে খারিজ করার উপযুক্ত সময়!সত্যিই উপযুক্ত সময়,একেবারেই মাহেন্দ্রক্ষন !
_________________________________________

ভদ্রলোক তুখোড় ছাত্র ছিলেন। মেধাবী ও বটে! তিনি স্কুলের প্রধান শিক্ষক। নাইট গার্ডের চাকরি খেয়েছেন।

যার কারনে চটেছেন স্কুলের গভর্নিং বডির কেউ কেউ। স্বয়ং সভাপতি ও প্রধান শিক্ষক কে কটাক্ষ করতে বাদ দেন নি।

চাকরি থাকা কালে নাইট গার্ড দিনের বেলায় প্রধান শিক্ষকের খোঁজ খবর নিত। অনেক সময়ই ছোট খাট বাজার করা সহ কাজ করে দিত।

নাইট গার্ডের সাথে প্রধান শিক্ষকের এমন সম্পর্ক দেখে পিওন, দপ্তরী, আয়া এমন কি কেরানীয় নাইট গার্ড কে সমীহ করত।অনেক শিক্ষক ও তাই ।

চাকরি খাওয়ার কারন:প্রধান শিক্ষক ফাইল পত্র নিয়ে সকালের ট্রেনে ঢাকা যাবেন। তো সকাল আট ঘটিকায় নাইট গার্ড প্রধান শিক্ষকের বাড়ীতে যেয়ে বলল স্যার আপনি সকাল ৯:০০ ঘটিকার ট্রেনে ঢাকা যাত্রা বাতিল করেন।অনুনয়, বিনয় ,অনুরোধ করে বলল স্যার আমি রাতে স্বপ্ন দেখেছি আপনি সকালের ট্রেনে ঢাকা যাওয়ার পথে বড়াল ব্রীজ ট্রেন দুর্ঘটনাতে মারা গেছেন।এই কথা বলে অনেক টা জোড়াজোড়ি করেই
প্রধান শিক্ষকের যাত্রা বাতিল করলেন।

তিনি অবশ্য বিকালের ট্রেনে ঢাকা থেকে ঘুরে আসলেন। গার্ডের স্বপ্নের কথা অনুযায়ী সতিই ঐ দিনের ট্রেন বড়াল ব্রীজ দুর্ঘটনার শিকার হয়ে প্রধান শিক্ষক যে বগিতে ছিলেন সে বগির সবাই মারা গেল।

প্রধান শিক্ষক স্কুলে এসে দেখলেন স্কুলের কম্পিউটার, আলমারি,মুল্যবান জিনিস পত্র যে রাতে নাইট গার্ড স্বপ্ন দেখেছে সে রাতে চুরি হয়েছে।

ঐ দিনের গভর্নিং বডির মিটিং এ সভাপতি তার ভাগ্নে নাইট গার্ড কে প্রধান শিক্ষক কে ট্রেন দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা করা জন্য পদন্নতি ও অর্থ পুরস্কার দেওয়ার দাবি করলেন।

সভা শেষে প্রধান শিক্ষক নাইট গার্ড কে ঐ রাতে ঘুমানোর জন্য (না ঘুমালে স্বপ্ন দেখল কেমন করে)চাকরি খেয়ে চুরির জন্য (নাইট গার্ড জেগে থাকলে চুরি হত না)দায়ী করে মামলা দিলেন।

অনেকেই কাহিনীর শুনে প্রধান শিক্ষক কে উপহাস করলেন যে ঐ ট্রেনের যাত্রার নাইট গার্ড না ঠেকালে তো তাকে মরতে হত।
কিন্ত বেচারা নাইট গার্ডে মনে মনে ঠিক ই ভাবছে যে রাতের ঘুম আর চুরি টাকে হাসিল করতে মিথ্যা স্বপ্নের কথা বানিয়ে বললাম আর ট্রেন সেটাই শুনে সত্যি সত্যিই দুর্ঘটনায় পড়ল।

এমন প্রধান শিক্ষক খুবই দরকার ঐ সমস্ত নাইট গার্ড কে রাতে ঘুমানোর শাস্তি দেওয়ার জন্য।প্রধান শিক্ষক ঠিক ই বুঝতে পেরেছেন তার শুভাকাঙ্ক্ষী হলেও সে রাতের গার্ডের অযোগ্য, আন্দাজে কথা বলে হয়ত একজন প্রধান শিক্ষকের সাময়িক দুর্ঘটনা রক্ষা করেছে কিন্ত সে তো পুরো স্কুল টাই চুরি করেছে।

রাতে নিজে ঘুমানোর জন্য, গোপনে খারাপ কাজ হজম করার জন্য, নিজের কুৎসিত চরিত্র ঢাকার জন্য, নিজের চুরি ঢাকার জন্য আমরা কত গল্পের মাধ্যমে,কত রকম নাটক করে ,অসুস্থতার নাটক করে,নিজের ভাল তুলে ধরার জন্য, নিজে শুভাকাঙ্ক্ষী সাজার জন্য কত জন প্রধান শিক্ষক কে যে এমন গল্প শুনাচ্ছি যার কয়টা ট্রেনের মত সত্যি হয় ?কিন্ত প্রতি বার ঠিক ই স্কুল চুরি হচ্ছে।আর কিছু সভাপতি ঠিকই ভাগ্নেদের প্রমোশন চাচ্ছেন ।তাই এমন প্রধান শিক্ষকের ট্রেন যাত্রা বাতিল বা জীবন রক্ষা নাইট গার্ডের আন্দাজে ঢিল মারা ।

এই ঢিল হতে আপনি ,আমি ,আমরা ,আমাদের সাবধান হওয়ার সময়!আর স্কুল চোরদের নাইট গার্ড থেকে খারিজ করার উপযুক্ত সময়!সত্যিই উপযুক্ত সময়,একেবারেই মাহেন্দ্রক্ষন !

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Website Design, Developed & Hosted by ALL IT BD