চাঁদপুরে মধ্য আশিকাটি স্কুল নির্মাণের শুরুতেই অনিয়ম, পাইলিং ভেঙে চৌচির, ভবনের কাজ স্থগিত

চাঁদপুরে মধ্য আশিকাটি স্কুল নির্মাণের শুরুতেই অনিয়ম, পাইলিং ভেঙে চৌচির, ভবনের কাজ স্থগিত

চাঁদপুর প্রতিনিধি

চাঁদপুর সদর উপজেলার ২ নং আশিকাটি ইউনিয়নের মধ্য আশিকাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় তলা ভবন নির্মাণ কাজের শুরুতে অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণে পাইলিং ভেঙে চৌচির হয়ে গেছে।
ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান ব্যাপক দুর্নীতি ও অনিয়ম করার নবনির্মিত ২৯ টি পাইলিং করার সময় সিমেন্ট কম দেওয়া ও নিম্নমানের পাথর দিয়ে কাজ তড়িঘড়ি করে করার কারণেই এই ঘটনাটি ঘটেছে।
মেসাস বধূলী এন্টারপ্রাইজ ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের মালিক তপন কুমার দে মধ্য আশিকাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণের কাজটি পেয়েছে। এলজিইডি অর্থায়নে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ তলা ফাউন্ডেশনে দ্বিতীয় তলা ভবনে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৮৭ লক্ষ ৩০ হাজার ৬৪ টাকা।
কিন্তু কাজের গুণগত মান খারাপ হওয়ায় ফাইল কাস্ট ভেঙে চুরমার হয়ে রড বেরিয়ে গেছে বলে অভিযোগ করেন স্থানীয়রা।
স্কুল কমিটি ও স্থানীয়দের অভিযোগের প্রেক্ষিতে অবশেষে দুর্নীতিগ্রস্ত ও অনিয়ম হওয়া স্কুল ভবনের কাজটি বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ।
ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, মধ্য আশিকাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণের কাজটি দীর্ঘদিন যাবৎ পড়ে রয়েছে। ঠিকাদার তপন কুমার দে সিডিউল অনুযায়ী ২৯ টি ৪০ ফুট দীর্ঘ পাইলিং নির্মাণ করার সময় সিমেন্ট বালু নিম্নমানের পাথর ও রড কম দিয়ে তৈরি করেন। স্কুল ভবন কাজটি তদারকি করেন এলজিইডি চাঁদপুর সদর উপ সরকারি প্রকৌশলী সৈয়দা ইশরাত ফেরদৌসী। কিন্তু উপসহকারী প্রকৌশলীর অনুপস্থিতিতে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে পাইলিং ঢালাইয়ের কাজ ঠিকাদার তড়িঘড়ি করে সম্পন্ন করেন।
২৯ টি পাইলিং এর মধ্যে ৬টি বসাতে গিয়ে হ্যামারিং করার সময় পাইল কাস্ট ভেঙে চুরমার হয়ে রড বেরিয়ে গেছে।
এসময় স্থানীয়দের অভিযোগের প্রেক্ষিতে এলজিইডি কর্তৃপক্ষ স্কুল ভবনের কাজটি স্থগিত করে দেন।
এ বিষয়ে দায়িত্ব থাকা এলজিইডি উপ সরকারি প্রকৌশলী সৈয়দা ইশরাত ফেরদৌসী জানান, স্কুল ভবনের পাইলিং করার সময় তা ভেঙ্গে যাওয়ায় সাথে সাথে কাজটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কি কারনে ফাইল কাস্ট ভেঙে গেছে তা জানা নেই। তবে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানানো হয়েছে তারা যেভাবে সিদ্ধান্ত দেবে পরবর্তীতে সেভাবেই কাজ করা হবে।

এলজিইডি উপজেলা প্রকৌশলীএ,এম, রাশেদুর রহমান জানান, স্কুল ভবনের কাজে শুরুতে হ্যামারিং করার সময় পাইলিং গুলি ভেঙ্গে গেছে। তবে কাজ আপাতত বন্ধ রয়েছে যারা পাইলিং গুলি বসিয়েছে তাদের কিছু ত্রুটি রয়েছে সে কারণে এমনটি হয়েছে। তবে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনার সাপেক্ষে পরবর্তীতে কাজ করা হবে।

ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান বধূলী এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী তপন কুমার দে জানান, ঠিকমতো হ্যামারিং না করার কারণে পাইলিং গুলি ভেঙে গেছে। কাজ আপাতত বন্ধ রয়েছে এলজিইডি কর্মকর্তার অনুমতি সাপেক্ষে পরবর্তীতে কাজ শুরু করা হবে।

স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, মধ্য আশিকাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন ৮৭ লক্ষ ব্যয় করে নির্মাণকাজের শুরুতেই ঠিকাদার তপন দে অনিয়ম ও দুর্নীতি করেছে। এরপূর্বে একই ঠিকাদার কল্যাণপুরে দাসাদী উচ্চ বিদ্যালয়ের চতুর্থ তলা ভবন নির্মাণে ব্যাপক অনিয়ম করেছে। চতুর্থ তলার ছাদে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ও রড কম দেওয়ার কারনে স্কুল কমিটির সভাপতির অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুনরায় সেই ছাদ ভেঙ্গে নতুন করে করেছে। এই দুর্নীতিবাজ ঠিকাদার দিয়ে পুনরায় সরকারি ভবনগুলো কাজ করার কারণে জনমনে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া এই দুর্নীতিবাজ ঠিকাদার তপন কুমার দে রঘুনাথপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণের কাজটিও নির্মাণের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে করছে। যা বর্তমানে চলমান আছে সঠিক অনুসন্ধান করে এই দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করার জোর দাবী জানান সচেতন মহল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Website Design, Developed & Hosted by ALL IT BD