শাহরাস্তিতে শাট ডাউনের মধ্যেও চলছে রমিজ কবিরাজের কবিরাজি

শাহরাস্তিতে শাট ডাউনের মধ্যেও চলছে রমিজ কবিরাজের কবিরাজি

মোঃ হাসানুজ্জামানঃ

শাট ডাউন বা কঠোর লগডাউন অথবা সরকারী আদেশ কিংবা নিষেধ উপেক্ষা করে শাহরাস্তিতে চলছে রমিজ কবিরাজের চরম কবিরাজি। যেখানে প্রতিদিন শতশত নারী ও পুরুষের ভীর জমে।

উপজেলার টামটা উত্তর ইউনিয়নের মুড়াগাঁও গ্রামের বড়বাড়িতে প্রতিদিন ঘটছে এমন ঘটনা।

জানা যায়, ওই বাড়ির মৃত আমির হোসেনের পুত্র রমিজ উদ্দীন (৬০) প্রবাস জীবন কাটিয়ে শেষ বয়সে এসে কবিরাজী করছেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, নিজ বাড়ির সম্মূখ ভাগে ছোট্ট একটি দো-চালা টিনের ঘরের পিছনে সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে শতশত নারী-পুরুষের জটলার মাঝখানে বসে তিনি কবিরাজি করছেন।

এবিষয়ে কবিরাজি রমিজ উদ্দীনকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, আমি স্বপ্ন যোগে কিছু দাওয়াই পেয়েছি। যা মানুষের মাঝে প্রয়োগ করি। এছাড়া রোগ বুঝে ঝাঁড়ফুঁক, পানি ও তেল পড়া দেই। আমি কোন ডিমান্ড করি না। যে যা দেয় আমি তাই গ্রহন করি। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, লগডাউন মানুষে মানে না। আর আমি মেনে লাভ কি? আমিতো আর মানুষের বাড়ি যাই না। মানুষই তাদের প্রয়োজনে আসে। কোভিট-১৯ প্রতিরোধে সরকারের প্রচেষ্টা ও নিষেধাজ্ঞা থাকা স্বত্বেও আপনি তা অমান্য করছেন? এমন প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, মানুষকে আমি নিষেধ করলেও তারা আসে। আমি কি করবো। তারা আমার কথা শুনে না।

প্বার্শবর্তি ইছাপুরা গ্রাম থেকে আসা রোগি কুলসুম বেগমকে জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন হুজুরের মোবাইল নাম্বারে ফোন দিয়েছি। তিনি আমাকে আসতে বলেছেন।

প্বার্শবর্তি কচুয়া উপজেলার আকানিয়া নাছিরপুর গ্রামের আরেক রোগি মিজানকে জিজ্ঞেস করলে তিনিও একই কথা বলেন।

এলাকাবাসী বলেন, রমিজ একজন টাউট প্রকৃতির লোক। কবিরাজির নামে সে অসহায় নারী-পুরুষদের সাথে প্রতারণা করছেন। তার কিছু দালাল রয়েছে। তারা রোগি সংগ্রহ করে। রোগির কাছ থেকে নেয়া টাকার ভাগ তারাও পায়। উপরের কেউ আসলে দালালেরা রমিজের পক্ষে মিথ্যা গল্প সাজিয়ে বলে। মূলত ওই সকল দালালদের কারনেই রমিজ অবৈধ কবিরাজি করতে সক্ষম হয়েছে। তারা আরও বলেন করোনাকালীন সময়ে বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা লোকজনের মাধ্যমে এই ভাইরাস ছড়ানো আশংকা শতভাগ রয়েছে। স্থানিয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা রমিজকে বহুবার বুঝানোর পরও তিনি এই কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি সরকার বা স্থানিয় কাউকে তোয়াক্কা করছেন না। ভুয়া কবিরাজ রমিজের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের মাধ্যমে শাস্ত দাবি করেন তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Website Design, Developed & Hosted by ALL IT BD