শিক্ষার্থীদের নির্যাতন করে নয় ভালোবাসা দিয়ে শিক্ষা দিতে হবে,নির্যাতন বরদাস করে না-

শিক্ষার্থীদের নির্যাতন করে নয় ভালোবাসা দিয়ে শিক্ষা দিতে হবে,নির্যাতন বরদাস করে না-

যশোর প্রতিনিধি

নাম তার মাহদী হাসান (১৫) যশোর শার্শা সরকারী মডেল পাইলট স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্র সে,তার বাবা ইটভাট্টার সাধারণ শ্রমিক,তিনি উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করার জন্য ছেলেকে ভর্তি করান ঐ স্কুলে।

দিন মজুর বাবার এই সন্তানকে স্কুলের শিক্ষকরা ড্রেস তৈরী করার জন্য সময় দেন সাত দিন,এর মধ্যে অনেক কষ্টে স্কুল ড্রেস হিসেবে ছেলেকে শার্ট বানিয়ে দেন অভাবী বাবা,উক্ত সাত দিনের দুই দিনের মাথায় সোমবার সকালে স্কুল ড্রেস হিসেবে শুধু শার্ট পরিধান করে স্কুলে যাওয়ায় শিক্ষক শহিদুল ইসলাম ক্লাস থেকে ডেকে মাহদীকে নিয়ে যান স্কুল ল্যাব রুমে,অতঃপর ১৫ বছর বয়সী শিক্ষার্থীর উপর চড়াও হন স্কুল শিক্ষক শহিদুল ইসলাম এবং নবম শ্রেণির ছাত্র মাহাদীর উপর শুরু করেন পাষবিক নির্যাতন।

ঘটনাটি অনেক দুঃখজনক,সকল শিক্ষকদের প্রতি অনুরোধ থাকবে আপনারা দয়া করে,পোশাকের জন্য সহ সকল কারণে শিক্ষার্থীদের উপর নির্যাতন করবেন না,ওনাদের মা-বাবা যদি স্কুল ড্রেস কিনে দিতে না পারে,প্রয়োজনে আপনারা আমাকে ফোন করবেন,আমি কিনে দেবো তারপরেও এ কোমলমতি শিশুদের উপর নির্যাতন করবেন না।

আমাদের আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা,হিউম্যান রাইটস রিভিউ সোসাইটির কেন্দ্রীয় পরিচালক ও সীতাকুণ্ড উপজেলা প্রধান কার্যালয়,কোমলমতি শিশুসহ সকলের ক্ষেত্রে নির্যাতন বরদাস করে না,সে যে হোক না কেন তাকে আইনের আওতায় আনে।

তাই শিক্ষকদের প্রতি আবারো অনুরোধ নির্যাতন করে নয় ভালোবাসা দিয়ে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা দিন।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Website Design, Developed & Hosted by ALL IT BD