স্ত্রী ঘুম থেকে উঠতে দেরি করায় তালাক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) তিন তালাক বিলুপ্ত করতে কড়া আইনের খসড়া পেশ করতে চলেছে। তবে আইন করলেই যে মানসিকতায় বদল আসে তা সঠিক নয়, তারই প্রমাণ মিলেছে। উত্তর প্রদেশের এক ব্যক্তি তার স্ত্রীকে তিন তালাক দিলেন মুখে মুখে। কারণ স্ত্রী সকালে ঘুম থেকে উঠতে দেরি করেছেন।
রামপুরের আজিমনগর এলাকায় বসবাসকারী ওই নারীর নাম গুল আফসা। তিনি অভিযোগ করেছেন, সকালে ঘুম থেকে উঠতে দেরি হওয়ায় স্বামী মারধর করে মুখে মুখেই তিন তালাক দিয়েছেন। এরপরে তাকে ঘরে আটকে রেখে পালিয়ে যান স্বামী। খবর পেয়ে পুলিশ এসে দরজা ভেঙে নিগৃহীতাকে উদ্ধার করেছে।

আরও পড়ুন:  মা-স্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতে প্রমাণ, পাকিস্তানে কুলভূষণ জীবিত

ইন্ডিয়া টুডে জানায়, প্রায় এক মাস আগে ট্রাক ড্রাইভার কাসিমের সঙ্গে বিয়ে হয় আফসার। বিয়ের পর থেকেই স্ত্রীর ওপর শারীরিক নির্যাতন চালানো হতো। গেলো সোমবার রাতে বেধরক পিটুনি দেয়া হয় আফসাকে। তাই মঙ্গলবার সকালে ঘুম থেকে উঠতে দেরি হয় তার। আর এ কারণেই তাকে তিন তালাক দেয় স্বামী।
তবে যেহেতু ওই নারী এখনও কোনও লিখিত অভিযোগ দায়ের করেননি। তাই পুলিশ ব্যবস্থা নিতে পারেনি।
সম্প্রতি তিন তালাক নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ পেয়েই কঠোর আইন তৈরিতে ব্যস্ত হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।
সংসদে সেই বিলের খসড়া পেশ করে অনুমোদন করিয়ে মুসলমান নারীদের অধিকারকে সুরক্ষিত করতে নতুন বিল তৈরি হবে। আইন ভাঙলে সর্বোচ্চ তিন বছরের সাজা হতে পারে স্বামীর।
যদিও দেশটির নানা প্রান্তে তিন তালাকের নানা ঘটনা নিত্যদিন সামনে আসছে। বিভিন্ন রাজ্যে নারীদের মারধর করে নির্যাতনের পাশাপাশি বাড়ি থেকে তাড়িয়ে মুখে মুখেই বিচ্ছেদ ঘটানো হচ্ছে। এই অবস্থা বিল পাশের পর বদলে যাবে বলেই মনে করছে দেশটির সরকার।
গত মাসে মন্ত্রী সভায় পাস হওয়া খসড়া অনুযায়ী, সরাসরি মুখে, ইমেইল, এসমএস অথবা ওয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে তালাক দিলে সর্বোচ্চ তিন বছরের সাজার বিধান রাখা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Website Design, Developed & Hosted by ALL IT BD