আইনের সেবক হয়ে জনতার সাড়িতে থেকে সেবা করে যাবো – নবাগত সদর সার্কেল স্নিগ্ধা সরকার

আইনের সেবক হয়ে জনতার সাড়িতে থেকে সেবা করে যাবো – নবাগত সদর সার্কেল স্নিগ্ধা সরকার

এস আর শাহ আলম

পুলিশই জনতা – জনতাই পুলিশ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে একজন সাধারণ মানুষ হতে চান চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নবাগত সদর সার্কেল স্নিগ্ধা সরকার, তিনি বলেন আইনের সেবক হয়ে জনতার সাড়িতে থেকে সাধারণ মানুষের সেবা করে যাবো, প্রতিটি মানুষ আমাকে খুব কাছ থেকে পাবে এবং তাদের সমস্যার কথা গুলি বলতে পারবে ঠিক তেমন ভাবে আমি চাঁদপুর সদর হাইমচর উপজেলা বাসির জন্য কাজ করবো,

একজন সাধারণ মানুষ যখন আইনের সেবকদের কাছে ন্যায় বিচার পাবে ঠিক তখনি মানুষের মাঝে পুলিশের প্রতি আস্থা ও বিশ্বাষ জেগে উঠবে, আমি মনে করি সাধারণ মানুষ যখন আমাদের কাছে আসতে পারবে ঠিক তখনি তারা অন্ধোকার জীবন থেকে আলোর পথে ফিরে আসবে, একজন পুলিশের কাছে সেটাও সম্বভ একজন অপরাধি কে ঘৃণার দৃষ্টিতে না দেখে আইনের মাধ্যমে তাকে ভালোবাসার দৃষ্টিতে দেখুন তাহলে মানুষ এবং সমাজ পরিবর্তন হবে।

তাছারা আমি এই জেলাতে নতুঁন এসেছি চলতি সময়ে প্রতিটি মানুষ কে চিনতে হয়ত আমার ভূল হতে পারে, তাছারা যতদূর যেনেছি এই জেলার মানুষ আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল, এবং মানব প্রেমি একে অপরের সাথে সু সম্পর্ক রয়েছে, ঠিক তেমনি করে সাধারণ মানুষ যদি আমাকে সহযোগীতা করেন তাহলে, মাদক মুক্ত বাল্য বিয়ে চাঁদাবাজি সহ সকল অপরাধ নির্মল করতে আমার সহজ হবে, তাই আমি সকলের কাছে অনুরোধ করবো আপনারা আমাকে অপরাধ মুক্ত সদর গড়ে তুলতে সহযোগীতা করবেন, পাশা পাশি সাংবাদিক ভাইয়েরাও আমাকে সহযোগীতা করবে বলে আমি আশা রাখি।

সোম বার দৈনিক চাঁদপুর সময় পএিকার বার্তা সম্পাদক এস আর শাহ আলম অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কার্যালয়ে নবাগত সদর সার্কেলের সাথে সৌজন্য সাক্ষাত কালে তিনি উপরন্ত কথা গুলি বলেন।

এ ছারা জনগণকে সার্বিক নিরাপত্তা এবং এই দুই থানা এলাকার আইন শৃঙ্খলা ও পুলিশিং কর্মকাণ্ডের সার্বিক তদারকির মাধ্যমে সমাজে শৃঙ্খলা, নিরাপত্তা ও প্রগতি নিশ্চিতকল্পে পুলিশ সদরদপ্তর স্নিগ্ধা সরকার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কে চাঁদপুর সদর সার্কেলের দায়িত্বে নিয়োগ দিয়েছেন বলে আজ দায়িত্ব পালন করছেন।

তিনি শিক্ষাজীবন শেষে ৩১ তম বিসিএস এর মাধ্যমে বাংলাদেশ পুলিশে যোগ দেন। তিনি মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ক্রিমিনলজি অ্যান্ড পুলিস সাইন্স এ মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন।

ইতিপূর্বে তিনি বাংলাদেশ পুলিশের বিশেষ ইউনিট আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (APBn – 5) এবং রেপিড একশন ব্যাটালিয়ন (RAB – 5) এ কর্মরত ছিলেন।

সর্বশেষ তিনি বাংলাদেশ পুলিশের গোয়েন্দা ইউনিট স্পেশাল ব্রাঞ্চে অত্যন্ত দক্ষতা ও সুনামের সাথে কাজ করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Website Design, Developed & Hosted by ALL IT BD