চাঁদপুর সরকারী কলেজের অধ্যক্ষের বিতর্কিত কর্মকান্ডের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা

চাঁদপুর সরকারী কলেজের অধ্যক্ষের বিতর্কিত কর্মকান্ডের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা

প্রেস বিজ্ঞপ্তি।। চাঁদপুর

চাঁদপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ অসিত বরণ দাস চাঁদপুর সরকারি কলেজের স্বেচ্ছাচারিতা এবং রাজনৈতিক দলবাজির সকল সীমা লংঘন করে ঐতিহ্যবাহী চাঁদপুর কলেজের শিক্ষা কার্যক্রম ধুলায় মিশিয়ে দিচ্ছে, অধ্যক্ষ হিসাবে সে সরকারি কর্মকর্তা হয়ে সমস্ত বিধি-বিধান ভঙ্গ করে একটি সংগঠনের পক্ষ নিয়ে নির্লজ্জ দলবাজী করে চলছে। ১৯৯০ইং সালে স্বৈরাচারী এরশাদ সরকারে বিরুদ্ধে প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার আপোষহীন নেতৃত্বে বিএনপি দেশব্যাপী কঠিন আন্দোলন সংগঠিত করে এরশাদের পতন ঘটান। কিন্তু দীর্ঘ নয় বছরে শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগ বারবার ভেলকীবাজী করে জাতির সাথে বেইমানী করে অবৈধ এরশাদের সাথে নির্লজ্জভাবে আঁতাত করে এরশাদকে বৈধতা দেয়ায় চেষ্টা করছে। দীর্ঘ তীব্র আন্দোলনের শেষ মুহুর্তে গত ৩রা ডিসেম্বর ৯০ চাঁদপুর ছাত্র সমাজের চূড়ান্ত আন্দোলনের একটি বিশাল মিছিলে এরশাদ সরকারের পুলিশ অতর্কিত গুলি করে তৎকালীন ছাত্রনেতা জিয়াউর রহমান রাজুকে নির্মমভাবে হত্যা করে এবং অসংখ্য ছাত্র জনতা গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর জখম হয়। পরে সে মিত্যু বরন করে। আমরা শহীদ রাজুর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি এবং তাহার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করছি। সেই শহীদ জিয়াউর রহমান রাজুর আত্মত্যাগকে পুঁজি করে তাহার শাহাদাৎ দিবসে গত ৩রা ডিসেম্বর চাঁদপুরে একটি সংগঠন কর্মসূচি পালন কালে রাজুর সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে শ্রদ্ধাঞ্জলী শেষে কলেজের অধ্যক্ষ উপস্থিত লোকজনের সামনে একটি শপথ বাক্য পাঠ করতে গিয়ে বাংলাদেশের বৃহত্তম রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপিকে প্রতিহত করার উদ্যত্বপূর্ণ ঘোষণা দিয়ে নির্লজ্জ দলীয় কর্মী হিসেবে নিজেকে প্রকাশ করেছেন। যাহা আবার বিভিন্ন যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করেছেন যাহা আমরা চাঁদপুর কলেজের সাবেক ভি.পি, জি.এস ও সকল ছাত্র সমাজের পক্ষ থেকে তীব্র প্রতিবাদ ও চরম ঘৃনা প্রকাশ করছি। এবং অবিলম্বে সরকারি দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ দাবী করছি এবং শিক্ষা মন্ত্রনালয় তাহার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বান জানাচ্ছি। নতুবা চাঁদপুরের ছাত্র জনতা কঠিন আন্দোলনের মাধমে তাহাকে পদত্যাগে বাধ্য করবে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, ইতিমধ্যে কলেজের একটি বাগান যাহাতে মহামূল্যবান অসংখ্য গাছ ছিল, যেগুলো কোন টেন্ডার ছাড়া কাটা হয়েছে এবং পুরাতন ইটগুলি টেন্ডার না দিয়ে বিক্রি করে টাকাগুলো আত্মসাত করেছে মর্মে বিভিন্ন মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। এমতাবস্থায় আমরা সচেতন ছাত্রসমাজ নীরব থাকতে পারি না, এহেন অনৈতিক কাজের তীব্র নিন্দা জানাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Website Design, Developed & Hosted by ALL IT BD