কংগ্রেসের গড় দখল করতে কাজ শুরু তৃণমূলের

পঞ্চায়েত ভোটে কংগ্রেসের গড় মালদহ দখলে ঘুঁটি সাজানোর কাজ শুরু করে দিল তৃণমূল। বৃহস্পতিবার রাতে কলকাতায় দলের জেলা পর্যবেক্ষক তথা পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী ও মালদহের দলীয় চার নেতার মধ্যে জরুরি বৈঠকে সেই রণকৌশল ঠিক হয়েছে। আগামী ১১ ফেব্রুয়ারি ঘটা করে দলের জেলা সম্মেলন করবেন তাঁরা। পঞ্চায়েত ভোট ও সম্মেলনকে সামনে রেখে নতুন বছরের শুরু থেকেই জেলা জুড়ে ব্যাপক প্রচারের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। জেলা সম্মেলনের পর ১৫টি ব্লকের সম্মেলনও করবেন তাঁরা। তার আগে অবশ্য দলের ব্লক কমিটিগুলি ঘোষণা করা হবে।

দলীয় সূত্রে খবর, নয়া ব্লক কমিটিগুলির বেশিরভাগের অনুমোদন দলের রাজ্য নেতৃত্ব জেলা সভাপতিকে দিয়ে দিয়েছেন। সম্ভবত ৩ জানুয়ারি তা ঘোষণা হতে পারে। মালদহ জেলার সুবিদিত দলীয় গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব পঞ্চায়েত ভোটের আগে যাতে না প্রভাব ফেলে, সে জন্য ব্লক কমিটিগুলিতে এ বার সভাপতির পাশাপাশি কোথাও চেয়ারম্যান, কোথাও বা কার্যকরী সভাপতি হিসেবে একাধিক নেতৃত্বকে রেখে সামঞ্জস্য বজায় রাখার চেষ্টা করা হয়েছে বলে দলীয় সূত্রে খবর। বিধানসভা ভোটের ফলাফলের মতোই গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে মালদহ জেলায় দাঁত ফোটাতে পারেনি তৃণমূল। ত্রিস্তর পঞ্চায়েতের বেশিরভাগ আসনই দখল করেছিল কংগ্রেস ও সিপিএম। কিন্তু দলবদলের জেরে এই মূহুর্তে জেলার ত্রিস্তর পঞ্চায়েতের বেশিরভাগটাই তৃণমূলের দখলে। কংগ্রেস তার গড় যাতে রক্ষা করতে না পারে, সে জন্য এখন থেকেই ঘুঁটি সাজানোর কাজ শুরু করে দিল তৃণমূল।

দলীয় সূত্রে খবর, বিশেষ বৈঠকের জন্য বৃহস্পতিবার আচমকা তৃণমূলের মালদহ জেলা সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন, ইংরেজবাজারের বিধায়ক ও পুরপ্রধান নীহাররঞ্জন ঘোষ, উপ-পুরপ্রধান দুলাল সরকার এবং জেলা তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি অম্লান ভাদুড়ি-এই চার জনকে তলব করেন শুভেন্দবাবু। বৃহস্পতিবারই কলকাতায় ওই পাঁচ জনের মধ্যে প্রায় দু’ঘন্টা বৈঠক হয়। দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, সেই বৈঠকে পঞ্চায়েত ভোটের রণকৌশল নিয়েই বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। ভোটকে সামনে রেখে ওই নেতাদের এখন থেকেই সকলকে সঙ্গে নিয়ে মাঠে নামার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। শুধু তাই নয়, ১১ ফেব্রুয়ারি দলের জেলা সম্মেলন ঘটা করে করতে বলা হয়েছে।

বৈঠকে দলের ব্লক কমিটি নিয়েও জোর আলোচনা হয়। বেশিরভাগ ব্লক কমিটির দলীয় অনুমোদনও দিয়ে দেওয়া হয়েছে জেলা সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেনকে। তবে কালিয়াচক ১, মানিকচক ও হরিশ্চন্দ্রপুর ২ ব্লক কমিটি নিয়ে সামান্য দোদুল্যমানতা রয়েছে। তৃণমূলের মালদহ জেলা কার্যকরী সভাপতি দুলাল সরকার বলেন, ‘‘পঞ্চায়েত ভোট ও সাংগঠনিক বিষয় নিয়েই কলকাতার বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। নয়া ব্লক কমিটির অনুমোদন মিলেছে।’’ তবে কমিটিতে কারা ঠাঁই পেয়েছেন তা নিয়ে তিনি মন্তব্য করতে চাননি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Website Design, Developed & Hosted by ALL IT BD